তাকিয়ে দেখার আনন্দ হিল্লোল

মৃন্ময় মণ্ডল

0 ৮৫

 

যদি আমি অন্ধ হয়ে যাই
তবুও দেখবো আমি চক্ষুষ্মান
দিগন্তের সবুজ আর শিশির ভেজা ঘাসফুল।
তবুও কাঁটা বিছানো পথেই আমি হাঁটবো
দুরন্ত দুর্বার ; তুলে নেব মাটি মাখা
দোয়েলের ডিম শালিকের পালক
আর কিছু সদ্য ঝরা তাজা বকুল।

কতদিন খুঁজে ফিরেছি ধানসিঁড়ি নদীটির
রূপসী বুক ; শুধু চোখে এসে ঠোকরায়
কির্তনখোলার রূপালী ইলিশ।

একদিন জারুল তলায় কিশোরী ঘাঠে
চোখ মেলে চেয়ে দেখি নেই কোন
বনলতা সেন। কি জানি নাটোরের
পথ ভুলে এসেছি অনন্ত বিভ্রমে !

সিটি কলেজের এক সুবোধ তরুণী অপলক চেয়ে থাকতো তোমার বিষন্ন
ঠোঁটের না বোঝা কথা পৃথিবির শ্রেষ্ঠ
আনন্দ ধ্বনি । হৃদয়ে যেন এলোকেশী স্বর্ণ জয়ন্তি।
রবীন্দ্রনাথের তাকিয়ে দেখার আনন্দ হিল্লোল।

তোমার পৃথিবীতে বেদনাই ছিল জোয়ারের টান
এক সময় তীব্র স্রোতে মিশে যায়
ধানসিঁড়ি আর কির্তনখোলার কলতান।