দেবহাটার ভাতশালায় ভাঙ্গন কবলিত বেড়িবাঁধ পরিদর্শন

0 ৮৭

ইয়াছিন আলী, দেবহাটা: সাতক্ষীঅরার দেবহাটা উপজেলার ভাতশালা এলাকায় প্রবল ঘূর্নিঝড় আম্ফানে বাংলাদেশ-ভারত সীমান্ত নদী ইছামতি নদীর ভাঙ্গন কবলিত ঝুকিপূর্ন বেড়িবাঁধ পরিদর্শন করেছেন সাতক্ষীরা জেলা আঃলীগের সভাপতি সাবেক সাংসদ মুনসুর আহম্মেদ এবং দেবহাটা উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার আলহাজ্ব আব্দুল গনি।

ঘূর্নিঝড় আম্ফানে এ ভেড়ীবাধটি ভেঙ্গে গিয়ে ঐ এলাকাটি প্লাবিত হয়। এই ভাঙ্গনের কারনে বাধটি ঝুকিপূর্ন হয়ে যাওয়ায় ঐ এলাকার মানুষেরা একটি অজানা আশঙ্খার মধ্য দিয়ে দিন অতিবাহিত করছেন। তারা ছেলে মেয়ে, গবাদী পশুসহ জিনিষপত্র নিয়ে বিপদে রয়েছেন। এই ভাঙ্গনে পার্শ্ববর্তী আরো কয়েকটি গ্রামের মানুষ গবাদি পশু, ঘের ও ফসলফলাদী নিয়ে বিপদের ঝুঁকিতে রয়েছেন। প্রায় ২ সপ্তাহ পার হতে চললেও পাউবো বা অন্য কোন কর্তৃপক্ষ বাধ মেরামতে কোন পদক্ষেপ এখনো গ্রহন না করায় ভাতশালাসহ ঐ গ্রামগুলির মানুষ হতাশ। যার কারনে বৃহষ্পতিবার দুপুর সাড়ে সাড়ে ১২ টার দিকে সাতক্ষীরা জেলা আঃলীগের সভাপতি সাবেক সাংসদ মুনসুর আহম্মেদ এবং দেবহাটা উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার আলহাজ¦ আব্দুল গনি ভাতশালার ভাঙ্গন কবলিত ভেড়ীবাধটি পরিদর্শন করেন।

এ সময় তাদের সাথে জেলা পরিষদ সদস্য বিশিষ্ট সমাজসেবক আলহাজ্ব আল ফেরদাউস আলফা, দেবহাটা ইউপি চেয়াম্যান আবু বকর গাজী, দেবহাটা উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান হাবিবুর রহমান সবুজ, উপজেলা আঃলীগের নেতা শরীফ বিশ্বাস, স্থানীয় ইউপি সদস্য আব্দুল জলিল, ইউপি সদস্য কামরুল ইসলামসহ রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

এ সময় এলাকাবাসীর দাবীর প্রেক্ষিতে জেলা আঃলীগ সভাপতি ও উপজেলা চেয়ারম্যান অতি দ্রুত বাধ মেরামতে ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানান। আপাতত ২/১ দিনের মধ্যে জিও ব্যাগ দিয়ে বাঁধ পরক্ষার ব্যবস্থা করা হবে বলে তারা আশ্বস্থ করেন। তবে বর্তমেনে নদীতে জোয়ারের পানি বেশি হওয়ায় অধিকাংশ বেড়িবাধ নাজুক হয়ে দাড়িয়েছে। তাই অবিলম্বে সংস্কার করার জন্য দাবী জানানো হয়েছে।