বিএনপি নেতাকর্মীদের ট্রলার বহরে হামলা, আহত অর্ধশতাধিক

কর্তৃক Ayub hossaen Rana
০ কমেন্ট 77 ভিউস
খুলনা ব্যুরো: খুলনার ডাকবাংলো মোড়ের সোনালী ব্যাংক চত্বরে আয়োজিত বিএনপির বিভাগীয় গণসমাবেশে অংশ নিতে যাওয়া বিভিন্ন অঞ্চলের নেতাকর্মীদের ওপর আওয়ামী লীগ ও তার অঙ্গ সংগঠনের হামলার অভিযোগ উঠেছে। গণপরিবহন বন্ধ থাকায় নদী পথে গণসমাবেশে ট্রলারযোগে যাওয়ার সময় প্রতিপক্ষের হামলায় ফুলতলা উপজেলা বিএনপির অন্তত অর্ধশত নেতাকর্মী আহত হয়েছেন। আহতদেরকে ফুলতলা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সসহ বিভিন্ন হাসপাতাল ও ক্লিনিকে ভর্তি করা হয়েছে। আওয়ামী লীগ, যুবলীগ ও ছাত্রলীগ এ হামলা চালিয়েছে বলে উপজেলা বিএনপি নেতৃবৃন্দের অভিযোগ।
দলীয় সূত্র জানায়, সড়ক পথে গণপরিবহন বন্ধ করে দেওয়ায় শনিবার সকাল ৯টায় বিএনপি নেতাকর্মীরা পুলিশী বাধা অতিক্রম করে ভৈরব নদীর ফুলতলা ও শিকিরহাট ঘাট দিয়ে ৯টি ট্রলারযোগে খুলনার মহাসমাবেশের উদ্দেশ্যে যাত্রা শুরু করে। দিঘলিয়া এলাকায় এলে পুলিশের উপস্থিতিতে আওয়ামী লীগ ও অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মীরা নদীর তীর থেকে তাদের লক্ষ্য করে ইটপাটকেল ছুড়তে থাকে এবং কয়েকটি ট্রলার নিয়ে তাদের ঘিরে ফেলে। পরে রাম দা, রড, লাঠি নিয়ে কুপিয়ে ও পিটিয়ে অর্ধশত বিএনপির নেতাকর্মীকে আহত করা হয়।

এ ঘটনায় গুরুতর আহত হন খুলনা জেলা বিএনপির সদস্য, ফুলতলা উপজেলা বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক এবং ইউপি চেয়ারম্যান শেখ আবুল বাশার (৫৪) যুগ্ম আহবায়ক শেখ লুৎফর রহমান (৬০), বিএনপি নেতা মোল্যা মনিরুল ইসলাম (৫৪), আব্দুল্লাহ (৩০), সাজ্জাদুজ্জামান (৫০), জিয়াউর রহমা( ৪৫), মোঃ তাছির (৫৬), জাহাঙ্গীর হোসেন (৪৫), ইয়াছিন আলী (৩৬), শেখ হাবিুবর রহমান (৪৫), সোহরাব হোসেন (৫৬), ইকরামুল বিশ্বাস (৩৫), হারিুন মোল্য (৪৮), ফেরদাউস মোলা (৪৪) শেখ সিরাজুল ইসলাম (৫০) আঃ মজিদ (৬০) সুনিল দাস (৪৮), সুমন সরদার (৩৮), আঃ গফ্ফার শেখ (৫৫) কে ফুলতলা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়।

তবে আব্দুল্লাহর অবস্থা গুরুতর হওয়ায় তাকে খুলনার একটি বেসরকারি হাসপাতালে স্থানাস্তর করা হয়। এছাড়া আহত অন্যান্য নেতাকর্মীরা খুলনার বিভিন্ন হাসপাতাল ও ক্লিনিকে চিকিৎসা নেয়। ঘটনার সময়ে আত্মরক্ষার্থে শতাধিক নেতাকর্মী নদীতে ঝাঁপিয়ে পড়েন। তাঁদের অনেকের সন্ধান এখনও পাওয়া যায়নি।

এ ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে অবিলম্বে জড়িতদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি জানিয়েছেন খুলনা জেলা বিএনপির আহবায়ক আমির এজাজ খান।

ফুলতলা থানার ওসি মোঃ ইলিয়াস তালুকদার বলেন, ঘটনাটি খুলনা এলাকাতে ঘটেছে, ফলে আইনগত বিষয়টি আমাদের এখতিয়ারের বাইরে।

রিলেটেড পোস্ট

মতামত দিন

error: Content is protected !!