রাজার শিক্ষা

0 ৬৬

রাজার বড় মাছ খাওয়ার ইচ্ছা হলো,তাই উজিরকে ডেকে বললেন,”উজির, এদেশের সবচেয়ে বড় মাছটি দরবারে হাজির করো।”

এক জেলে বিরাট একটা মাছ নিয়ে রাজার  দরবারে হাজির।

 রাজা খুশি হয়ে দশ হাজার টাকার বান্ডেল ছুঁড়ে দিয়ে বললেন,”এই নে, তোর মাছের দাম।”

পাশেই রানী বসে ছিলেন। এতো টাকা দিয়ে মাছ কেনাটা রানীর কাছে পছন্দ হলো না। তাই রাজার কানে কানে বললেনঃ”মাছটা ফিরিয়ে দিয়ে দশ হাজার টাকা ফেরৎ নিয়ে নেন।”

রাজাঃ ” কিভাবে সম্ভব ?”

রানীঃ “আপনি ওকে জিজ্ঞাসা করেন মাছটি পুরুষ না মহিলা ? যদি বলে পুরুষ. বলবেন পুরুষ মাছ রানীর অপছন্দ, আর যদি বলে মহিলা; বলবেন মহিলা মাছ রানীর অপছন্দ।”

রাজাঃ”এই জেলে তোর মাছ পুরুষ না মহিলা?”

জেলেঃ”জাহাপনা এইটা পোলা বা মাইয়া না। এইটা হিজড়া।”

উত্তর শুনে রাজা খুশি হয়ে এক লক্ষ টাকার বান্ডেল ছুঁড়ে দিলেন।

বৃদ্ধ জেলে দরবার হতে বের হবার সময় পকেট থেকে কুড়ি টাকার নোট পড়ে গেলে তাড়াতাড়ি টাকাটা তুলে চুমা দিয়ে প্রণাম করে পকেটে ভরলো। তা দেখে রানীর খুব খারাপ লাগলো।

রাজার কানে কানে বললোঃ” রাজামশাই দেখেছেন, এই জেলেটা কত বড় লোভী! এতো টাকা উপার্জনের পরও কুড়িটা টাকা কিভাবে চুমা দিয়ে তুলে নিলো! আমার মন বলছে এই বেটাই আপনাকে হত্যা করে সিংহাসন হরন করবে “।

রাজা ভীষন রেগে গিয়ে সেনাপতিকে হুকুম দিলেনঃ “এখনই এই শালার বেটাকে ফাঁসিতে ঝুলাও।”

বৃদ্ধ জেলে হাত জোড় করে বললোঃ” হুজুর আমার দোষ “?

রাজাঃ ” তুই একটা লোভী। কুড়িটা টাকা মাটি থেকে তুলে চুমা দিলি!”

জেলেঃ  হুজুর, এই কুড়ি ট্যাকা মাটিতে থাকলে মানুষের পায়ের তলায় পড়তো। তাই আমি তাড়াতাড়ি তুইলা চুমা দিয়া প্রণাম করছি কারন ঐ ট্যাকায় আফনের ফটো আছে।”

রাজা আনন্দে আত্মহারা হয়ে কোটি টাকার হারটি ছুঁড়ে দিয়ে বললেনঃ “এই নে তোর এনাম।”

এরপরে রাজা উজিরকে ডেকে বললেনঃ “আমার দেশবাসীকে জানিয়ে দাও তারা কেউই যেনো বৌয়ের কথা না শুনে। আমি বৌয়ের কথা শুনে দশ হাজার টাকার মাছ কিনে কোটি টাকা গচ্চা দিলাম “।

(ফেসবুক থেকে সংগৃহীত)