রিয়াল মাদ্রিদকে হারিয়ে চ্যাম্পিয়নস লিগের সেমিতে বার্সেলোনা

0 ৯১

স্পোর্টস ডেস্ক :

রিয়াল মাদ্রিদের মাঠে ৩-১ গোলের জয়ে সেমিফাইনালের পথে অনেকটাই পরিষ্কার ছিলেন বার্সেলোনার মেয়েরা। তবে দ্বিতীয় লেগে নিজেদের মাঠ ন্যু ক্যাম্পে ১-২ পিছিয়ে পড়ে কিছুটা শঙ্কাই সৃষ্টি হয়েছিল দলটির।

ন্যু ক্যাম্পে প্রথমবারের মতো খেলতে নেমেছিলেন অ্যালেক্সিয়া পুতেয়াসরা। তাদের বরণ করে নিতে প্রায় ৯২ হাজার দর্শক হাজির হয়েছিলেন গ্যালারিতে, যা নারী ফুটবলের ইতিহাসে রেকর্ড। তাদের মাঝে বার্সা পুরুষ দলের কোচ জাভি হার্নান্দেজও ছিলেন।

ম্যাচটা নিয়ে বার্সার আয়োজনের কমতি ছিল না, দর্শকরা ম্যাচ শুরুর আগে মাঠের বাইরে বরণ করে নিয়েছিলেন পুতেয়াসের দলকে। এমন উৎসবমুখর পরিবেশে বাড়তি মাত্রা যোগ করেন মারিয়া পিলার লিওন। ৮ মিনিটে বার্সেলোনাকে এগিয়ে দেন তিনি।

তবে রিয়াল মাদ্রিদও ছেড়ে কথা বলেনি। ১৬ মিনিটে পেনাল্টি থেকে ওলগা কারমোনার গোলে সমতা ফেরায়। ১-১ সমতায় থেকে বিরতিতে যাওয়া রিয়াল দ্বিতীয়ার্ধের তৃতীয় মিনিটে এগিয়ে যায় ক্লদিয়া জরনোজার অবিশ্বাস্য এক গোলে। মাঝমাঠ থেকে শট নিয়ে গোল করে বসেন তিনি। ন্যু ক্যাম্পে হাজির বার্সা সমর্থকদের মনে তখন ভর করে বসেছে হারের শঙ্কা।

তবে সে শঙ্কা বার্সার মেয়েরা উড়িয়ে দিয়েছে এর পর পিছিয়ে পড়েই যেন জেগে ওঠে দলটি। ৫২ মিনিটে আইতানা বনমাতির গোলে ফেরায় সমতা। এর ৩ মিনিট পর ক্লদিয়া পিনার গোলে ৩-২ গোলে এগিয়ে যান স্বাগতিকরা।

দলের ব্যালন ডিঅর বিজয়ী ফরোয়ার্ড অ্যালেক্সিয়া গোল করেন ৬২ মিনিটে। ৭০ মিনিটে রিয়ালের কফিনে শেষ পেরেকটা ঠোকেন ক্যারোলিন গ্র‍্যাহাম হ্যানসেন। তাতে ৫-২ গোলের বড় জয় দিয়ে প্রথম ন্যু ক্যাম্পে খেলার অভিজ্ঞতাটা আরও বেশি স্মরণীয় করেন বার্সার মেয়েরা।

এই জয় দলটিকে তুলে দিয়েছে চ্যাম্পিয়নস লিগের সেমিফাইনালে। শেষ চারের লড়াইটিতে বার্সেলোনা নামবে আগামী ২২ এপ্রিল।


error: Content is protected !!