সাতক্ষীরার কৃতি সন্তান তৈয়ব হাসান দক্ষিণ কোরিয়া যাচ্ছে আন্তর্জাতিক রেফারী সম্মেলনে যোগ দিতে

কর্তৃক Ahadur Rahman Jony
০ কমেন্ট 29 ভিউস

নিজস্ব প্রতিবেদক: বিদেশের মাটিতে একের পর এক কৃতিত্বের স্বাক্ষর রেখে যাচ্ছে সাতক্ষীরার কৃতি সন্তান তৈয়ব হাসান। আবারও আন্তর্জাতিক একটি রেফারী সম্মেলনে যোগ দিতে কোরিয়া যাচ্ছে।

আগামী ২৬ থেকে ৩১ আগষ্ট ২০১৯ আন্তর্জাতিক ফুটবল সংস্থা (ফিফা)’র আয়োজনে দক্ষিণ কোরিয়ায় আন্তর্জাতিক রেফারী ইন্সট্রাক্টর সেমিনার অনুষ্ঠিত হবে। উক্ত সেমিনারে যোগ দিতে শনিবার ঢাকা ছাড়বেন বিশ্ব তথা এশিয়ার খেলাপ্রেমীদের প্রিয় মুখ সাবেক ফিফা এলিট রেফারী তৈয়ব হাসান।

সফরকালে আন্তর্জাতিক রেফারী ইন্সট্রাক্টর সেমিনারে বাংলাদেশের প্রতিনিধিত্বকারী হিসাবে বক্তব্য দেবেন তিনি।এছাড়াও তাঁর সাথে সেমিনারে যোগ দিতে দক্ষিণ কোরিয়া যাচ্ছেন রেফারী ইন্সট্রাক্টর আজাদ রহমান ও রেফারী ফিটনেস্ ইন্সট্রাক্টর সুজিত ব্যানার্জী।

২৪ অক্টোবর, শনিবার তৈয়ব হাসান বিমান যোগে দক্ষিণ কোরিয়ার উদ্দেশ্যে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর ছেড়ে যাবে।

উল্লেখ্য, এই কিংবদন্তী রেফারি ১৯৭০ সালের ৯ জানুয়ারি সাতক্ষীরা শহরের পলাশপোল গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। তিনি ফিফা রেফারিং হিসাবে প্রথম ম্যাচ পরিচালনা শুরু করেছিলেন ১৯৯৯ সাল থেকে। এর কিছুদিন পরই ফিফার এলিট প্যানেলে যুক্ত হয়ে ফিফা আয়োজিত বিশ্বকাপ কোয়ালিফায়িং, অলিম্পিক কোয়ালিফায়িং, এএফসি চ্যাম্পিয়ন্স লীগ, বিভিন্ন রাউন্ড টুর্নামেন্ট সহ শতাধিক আন্তর্জাতিক ম্যাচ পরিচালনায় তিনি কোরিয়া, জাপান, অস্ট্রেলিয়া, সৌদি আরব, হংকং, তাইয়ান, চীন, মঙ্গোলিয়া, ইরান, ইরাক, মালেশিয়া, সিঙ্গাপুর, থাইল্যান্ড, ভিয়েতনাম, কম্বোডিয়া, লাউস, জর্ডান, ওমান, উজবেকিস্তান, কাজাকিস্তান, তাজাকিস্থানসহ এশিয়ার প্রায় সব দেশে ফিফা, এএফসি এবং বাংলাদেশের প্রতিনিধিত্বকারী হিসাবে প্রতিনিধিত্ব করেছিলেন। সে হিসেবে তার গুণমুগ্ধ ভক্তদের সংখ্যা অগণিত।
রেফারিংয়ে বিশেষ কৃতিত্বের জন্য তিনিই একমাত্র বাংলাদেশী হিসাবে প্রথম এশিয়ান ফুটবল কনফিডারেশন (এএফসি), বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশন (বাফুফে), সাতক্ষীরা জেলা জন সমিতি-ঢাকা, সোনালী অতীত ক্লাব-ঢাকা, বাংলাদেশ ক্রীড়া লেখক সমিতি, বাংলাদেশ স্পোটস জার্নালিস্ট অ্যাসোসিয়েশন সহ বিভিন্ন জাতীয় প্রতিষ্ঠান কর্তৃক সেরা রেফারিং এ সম্মাননা পেয়েছেন। এবং এশিয়ান ফুটবল কনফিডারেশন (এএফসি) এর তৎকালীন প্রেসিডেন্টও তাঁকে সম্মাননা প্রদান করেছিলেন।

সফরকালে সকলের কাছে দোয়া চেয়েছেন তিনি। টানা ১৮ বৎসর যাবৎ তিনি ফিফা রেফারিং হিসাবে সুনামের সহিত দায়িত্ব পালন করছেন।এছাড়া তিনি আন্তর্জাতিক রেফারী এ্যাওয়ার্ড অর্জন পূর্বক শতাধিক আন্তর্জাতিক ম্যাচ পরিচালনা করেছেন।

রিলেটেড পোস্ট

মতামত দিন

error: Content is protected !!