সাতক্ষীরায় দ্রুত ছড়িয়ে পড়ছে গরুর বসন্ত রোগ

কর্তৃক Ahadur Rahman Jony
০ কমেন্ট 13 ভিউস

ইয়ারব হোসেন: সাতক্ষীরা জেলায় অতি দ্রুত ছড়িয়ে পড়ছে গরুর বসন্ত রোগ। ইতিমধ্যে জেলার প্রতিটি উপজেলায় গরু বসন্ত রোগে আক্রান্ত হওয়ার খবর ছড়িয়ে পড়েছে। জেলা প্রাণী সম্পদ বিভাগের কোন উদ্যোগ না থাকায় খামারীদের মধ্যে হতাশা দেখা দিয়েছে। বিশেষ করে দুগ্ধ খামারীদের মধ্যে চরম উদ্বেগ ও উৎকন্ঠা কাজ করছে।
জেলায় বসন্ত রোগে আক্রান্ত হয়ে প্রায় ১০ হাজার গরু অসুস্থ হয়ে পড়েছে। চিকিৎসা না পেয়ে জেলার আরো হাজার হাজার গরু বসন্ত রোগে আক্রান্ত হওয়ার আশংকা করা হচেছ। সবচেয়ে বেশি আক্রান্ত হয়েছে সাতক্ষীরা সদর,তালা উপজেলা। হাজার হাজার গরু বসন্ত রোগে আক্রান্ত হওয়ার পরও জেলা প্রানী সম্পদ কর্মকর্তা কোন খোঁজ খবর রাখেন না বলে অভিযোগ উঠেছে।
একটি দায়িত্বশীল সুত্র জানিয়েছে,জেলার বিভিন্ন গ্রামে শত শত গরু বসন্ত রোগে আক্রান্ত হয়েছে। সবচেয়ে বেশি বেশি আক্রান্ত হয়েছে সদর উপজেলা,তালা ও কলারোয়া। গ্রামে গ্রামে বসন্ত রোগে আক্রান্ত হয়েছে শত শত গরু। সদর উপজেলার তুজলপুর,পাথরঘাটা,গোবিন্দকাঠি,বলাডাঙ্গা,আলিপুর,রামেরডাঙ্গা,চুপড়িয়া,সাতানি,শিবপুর,আখড়াখোলা,মুচড়া,কাঠালতলা,আমতলা,পাথরঘাাটা,সহ বিভিন্ন গ্রামে গরুর বসন্ত রোগ দেখা দিয়েছে। তালা উপজেলার কাপাসডাঙ্গা,নিমতলা,নগরঘাটা,বাবুলডাঙ্গা,এগারআনি কলারোয়া উপজেলার লাঙ্গলঝাড়াসহ বিভিন্ন গ্রামে এ রোগ ছড়িয়ে পড়েছে। প্রায় ১০ হাজার গরু আক্রান্ত হয়ে অসুস্ত হয়ে পড়েছে।
সদর উপজেলার তুজলপুর গ্রামের কবির হোসেন, নূর হোসেন,বলাডাঙ্গা গ্রামের লিটন,আলিপুর গ্রামের সোহাগ জানান,প্রথমে গরুুর গায়ে ফসকা ফসকা দেখা দিচেছ। ওই স্থান থেকে চামড়া উঠে যাচেছ। দেখা দিচেছ ঘা। এক পর্যায়ে গরুুর সারা শরীরে বড় বড় ঘা দেখা দিচেছ। আস্তে আস্তে সারা শরীরে ছড়িয়ে পড়ছে। গরুর গায়ে প্রচন্ড তাপ থাকছে। গা ফুলে উঠছে। আক্রান্ত গরু কম খাচেছ। গ্রামের প্রানী চিকিৎসকরা বলছে গরুুর এ বসন্ত রোগে আক্রান্ত হয়েছে। দিনের পর দিন পর দিন চিকিৎসা দেওয়ার পরও গরু সুস্থ হচেছ না। গ্রামের ঘরে ঘরে এ রোগে গরু আক্রান্ত হয়েছে।
সদর উপজেলার ব্রহ্মরাজপুর ইউনিয়নের কালেরডাঙ্গা গ্রামের দুগ্ধ খামারী অলিউর রহমান সুমন জানায়, পার্শ্ববর্তী জেয়ালা সহ কয়েকটি গ্রামে গরুর বসন্ত রোগ ধরা পড়েছে। এ নিয়ে বেশ চিন্তার মধ্যে পড়ে গেছি। এখনই যদি রোগ প্রতিরোধে প্রশাসন থেকে কার্যত কোন ব্যবস্থা না নেয় তাহলে জেলায় বড় ধরনের ক্ষতির আশংকা রয়েছে।
তালা উপজেলার প্রানী সম্পদ কর্মকর্তা জানান,উপজেলায় প্রায় ১ লাখ গরু রয়েছে। এরমধ্যে শতকরা প্রায় ৫ভাগ গরু আক্রান্ত হয়েছে। অন্তত ৫ হাজার গরু বসন্ত রোগে আক্রান্ত হয়েছে বলে বিভিন্ন মাধ্যম থেকে জানা গেছে। গরুদের সূস্থ করতে চিকিৎসা কার্যক্রম চালানো হচেছ।
জেলা প্রানী সম্পদ কর্মকর্তা ডা: শহিদুল ইসলামের সঙ্গে ০১৭১২-৪৬২৯৩৬ মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন এ বিষয়ে তার কাছে কোন তথ্য নেই। আপনার নিকট থেকে ঘটনাটি জানতে পারলাম। খোঁজ খবর নিয়ে জরুরীভাবে ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

রিলেটেড পোস্ট

মতামত দিন

error: Content is protected !!