স্ত্রীকে পাচার করে দেয়া সেই স্বামী সাতক্ষীরা থেকে গ্রেপ্তার

0 ৩৫৩

সাতনদী অনলাইন ডেস্ক: ভারতে পাচার হয়ে ৭৭ দিনের নির্যাতন ও বন্দীদশা থেকে পালিয়ে দেশে ফিরে হাতিরঝিল থানায় মামলা করা তরুণীকে পাচারে জড়িত এক আসামিকে গ্রেপ্তার করেছে হাতিরঝিল থানা পুলিশ। গতকাল (৮ জুন) মঙ্গলবার সন্ধ্যায় সাতক্ষীরা জেলার সীমান্তবর্তী ধাবকপাড়া কালিয়ানী এলাকা থেকে আকবর আলী (৫৫) কে গ্রেপ্তার করা হয়।

প্রেম করে তিন বছর আগে বিয়ে করে স্বামীর সঙ্গে শনিরআখড়ায় থাকতে শুরু করেন ওই তরুণী। সংসারে আর্থিক অবস্থা ভালো না থাকায় স্বামী তাকে বিদেশে যাওয়ার কথা বলে। ওই তরুণী রাজি হলে স্বামী তাকে তুলে দেন পাচারকারীর হাতে। এরপর সাতক্ষীরা, কলকাতা হয়ে তাকে ভারতের চেন্নাইয়ে বিক্রি করে দেওয়া হয়। সেখানে চলে অমানবিক নির্যাতন।

সম্প্রতি ওই তরুণী পুলিশের সঙ্গে যোগাযোগ করে পাচারকারী চক্রসহ তার স্বামীর বিচার দাবি করেন। তার মতো এমন অনেক নারীই এখন নির্যাতনের বিষয় তুলে ধরে পুলিশের সঙ্গে যোগাযোগ করছেন। গত মাসের শেষ দিকে ভারতে বাংলাদেশি এক তরুণীকে যৌন নির্যাতনের ভিডিও ভাইরাল হয়। এরপরই নারী পাচার চক্রের সন্ধানে নামে পুলিশ। এর মধ্যে নারী পাচারে যুক্ত নয়জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

নির্যাতনের শিকার ওই তরুণীকে কিভাবে পাচার করা হয়েছে তার একটি অডিও পাওয়া গেছে। যেখানে তিনি বলেন, তিন বছর আগে প্রেম করে বিয়ে করার পর স্বামীর সঙ্গে শনিরআখড়ায় থাকতে শুরু করেন। কিন্তু সংসারে অভাব থাকায় স্বামী তাকে গার্মেন্টেসে চাকরি করতে বলেন। কিন্তু তিনি পোশাকশ্রমিকের কাজ করতে রাজি হননি। পরে স্বামী তাকে বিদেশে যাওয়ার কথা বলেন। যেখানে দু-তিন মাস কাজ করলে আয় ভালো হবে। এরপর তারা ওই টাকা দিয়ে ব্যবসা করবেন।

প্রথমে এমন প্রস্তাবে রাজি না হলেও পরে রাজি হন। এরপর স্বামী তাকে এক মেয়ের হাতে তুলে দেন। সেই মেয়ে তাকে সাতক্ষীরা দিয়ে সীমান্ত পার করে তারা কলকাতায় নিয়ে যায়। সেখানে একটি ঘরে রাখা হয়। এরপর তাকে ভারতের পরিচয়পত্র বানিয়ে বিমানে করে চেন্নাই নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে একটি ঘরে তাকে আটকে রাখা হয়। এরপর চলতে থাকে শারীরিক অত্যাচার। তিনি কান্নাকাটি করলে মারধর করে বলা হয়, তাকে বিক্রি করে দেওয়া হয়েছে।