স্বাস্থ্য সেবার নামে চলছে ক্লিনিক ব্যাবসা; পর্ব-দুই

জেলার অধিকাংশ ক্লিনিক-ডায়াগনস্টিক সেন্টারের নিবদ্ধন হালনাগাদ করা নেই

0 ৭২

জহুরুল কবীর: ক্লিনিক ডায়াগনস্টিক সেন্টারের শহর এখন সাতক্ষীরা । প্রায় দুই বর্গকিলোমিটারের শহরটি যেন পুরোটাই একটি হাসপাতাল। প্রতি কদমে কদমে মিলবে একেকটি ক্লিনিক। এদের অধিকাশের লাইসেন্স থাকলেও একটিরও লাইসেন্স আপডেট করা নেই। এমনটি পলাশপোল এলাকার ফারজানা ক্লিনিক ও হাট কেয়ার সেন্টার, রসুলপুর এম আলি পলি ক্লিনিকসহ নামকরা অনেক প্রতিষ্ঠানের ’১৮সনের পর থেকে লাইসেন্স অনলাইন হালনাগাদ নেই। এদের মধ্যে অনেক প্রতিষ্ঠানের লাইসেন্স রিনুয়াল পিটিশন অবজারভেশনে আছে বলে সিভিল সার্জান ডাক্তার হোসেন সাফায়াত সাতনদীকে জানান। ডাক্তার হোসেন সাফায়াত আরো জানান, জেলায় যেসমস্ত লাইসেন্স বিহীন অবৈধ্য প্রতিষ্ঠান আছে তাদের একটি তালিকা ১২জুন জেলা আইনশৃঙ্খলা কমিটির মিটিংএ উপস্থাপন করা হয়েছে। পরবর্তিতে প্রশাসনিক সিদ্ধান্ত মোতাবেক অভিযান পরিচালিত হবে।
জেলা সিভিল সার্জন অফিসের তথ্যমতে সরকারি নথিভুক্ত মোট ৭০টির অধিক ক্লিনিক ও ডায়াগনস্টিক সেন্টার আছে। এদের মধ্যে ২০টির ক্লিনিক ও ডায়াগনস্টিক সেন্টারের উভয় লাইসেন্স আছে। এছাড়া ৩৬টি প্রতিষ্ঠানের ক্লিনিক্যাল লাইসেন্স ও ৩৯টি প্রতিষ্ঠানের কেবল মাত্র ডায়াগনস্টিক সেন্টারের লাইসেন্স আছে। অথচ উভয় প্রতিষ্ঠানই ডায়াগনস্টিক ও ক্লিনিক্যাল কার্য্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছে।
সাতক্ষীরা বেসরকারি হাসপাতাল, ক্লিনিক ও ডায়াগনস্টিক সেন্টার মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক কামরুজ্জামান রাসেল বলেন, তাদের সমিতিভুক্ত ১৪০টি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে কিছু প্রতিষ্ঠানের লাইসেন্স না থাকায় তাদের নিকট হতে লাইসেন্স পাওয়ার পর প্রতিষ্ঠান পরিচালনা করবেন বলে লিখিত স্বিকারোক্তিমুলক অঙ্গিকারনামা রয়েছে। সমিতির বাইরেও কিছু প্রতিষ্ঠান রয়েছে বলে তিনি স্বীকার করেছেন।
এসমস্ত প্রতিষ্ঠানের মধ্যে সাতক্ষীরা সদরের ডাঃ আজিজুর রহমানের ৩০ শয্যার ডক্টরস ল্যাব এন্ড হাসপাতাল (প্রাঃ) লিঃ, এ কে এম আনিছুর রহমানের ১০০ শয্যার সিবি হাসপাতাল লিমিটেড, ইসলামী ব্যাংক ফাউন্ডেশনের ৭০ শয্যার ইসলামী ব্যাংক কমিউনিটি হাসপাতাল লিঃ, মোঃ গোলাম রহমানের ১০ শয্যার আল-নুর হাসপাতাল, মোঃ আসাদুজ্জামানের ১০ শয্যার কেয়ার ক্লিনিক, কামালনগরে মোঃ কামরুজ্জামান রাসেলের ২০ শয্যার ডাঃ মাহতাব উদ্দীন মেমোরিয়াল হাসপাতাল, এ কে এম মহিউদ্দীনের ১০ শয্যার হার্ট ফাউন্ডেশন এন্ড ইনসেনটিভ কেয়ার হাসপাতাল, আবু মোঃ আক্তারুজ্জামানের ১০ শয্যার সততা ক্লিনিক, নাসরিন জামানের ২০ শয্যার আনোয়ারা মেমোরিয়াল ক্লিনিক, গুলশান নাহারের ১০ শয্যার সাতক্ষীরা ট্রমা এন্ড অর্থোপেডিক্স কেয়ার সেন্টার, মোঃ রাইসুজ্জামানের একতা ক্লিনিক এন্ড ডায়াগণষ্টিক সেন্টার, এস এম বশির আহমেদের সংগ্রাম মেডিকেল হাসপাতাল (প্রাঃ), কিশোর ইমদাদের গ্রামীণ চক্ষু হাসপাতাল ও প্যাথলজি, নলতা শরীফ, কালিগঞ্জের আনছার উদ্দীন আহমেদের ১০ শয্যার আহছানিয়া মিশন চক্ষু ও জেনারেল হাসপাতাল এন্ড ডায়াগণষ্টিক সেন্টার, নলতা চৌমুহনী মোঃ সাইদুল ইসলামের ১০ শয্যার শেরে বাংলা ক্লিনিক এন্ড ডায়াগণষ্টিক সেন্টার, কালিগঞ্জের শেখ গোলাম মোস্তফার লাইফ কেয়ার ডিজিটাল ল্যাব এন্ড হাসপাতাল, নকিপুর,শ্যামনগরের মোছাঃ রুনা খানের ২০ শয্যার ফ্রেন্ডস হাসপাতাল, হাসপাতাল রোড, কলারোয়ায় মোছাঃ উম্মে জান্নাতুলের ১০ শয্যার কলারোয়া আরোগ্য সদন প্রাইভেট হাসপাতাল এন্ড ডায়াগণষ্টিক সেন্টার, তালার বিধান চন্দ্র রায়ের তালা সার্জিক্যাল ক্লিনিক। আশাশুনি, বুধহাটার সুলেখা মখোপ্যধ্যায়ের ১০ শয্যার নিবেদিতা নার্সিং হোমসহ ২৫টির মতো প্রতিষ্ঠানের ক্লিনিক ও ডায়াগনস্টিক সেন্টার উভয়ের মেয়াদ উত্তির্ণ লাইসেন্স আছে।
এছাড়া শহরের মোঃ শফিকুল ইসলামের ১০শয্যার কনসালটেন্ট সার্জিক্যাল ক্লিনিক, এস এম সামছুদ্দীন আহমেদের ১০ শয্যার সানজানা নার্সিং হোম, ঝাউডাংগা বাজারে উষা রায়ের ১০ শয়্যার ঝাউডাংগা পাইলস এন্ড সার্জিক্যাল ক্লিনিক, মোঃ আসাদুজ্জামান আসাদের ৩০ শয্যার বুশরা হাসপাতাল, আফিফা রহমানের ১০ শয্যার নাজমুন ক্লিনিক, মোঃ আবু জাফরের ১০ শয্যার সিটি ক্লিনিক, মোঃ ফিরোজুর রহমানের ১০ শয্যার ফারহান ক্লিনিক, গাজী আব্দুল হাফিজের ১০ শয্যার সাতক্ষীরা ন্যাশনাল হাসপাতাল, বংশীপুর, শ্যামনগরের হাফিজুর রহমানের বংশীপুর নার্সিং হোম, তালার শারমিন আক্তার মনি ১০শয্যার নিউ জনসেবা ক্লিনিক, শ্যামনগরের ফয়সাল আমিন খানের ১০ শয্যার রিডা প্রাইভেট হাসপাতাল এন্ড ডায়াগণষ্টিক সেন্টার, নকিপুর, শ্যামনগরের তপন কুমার বিশ^াসের ১০ শয্যার মডার্ন ক্লিনিক, শ্যামনগর সুব্রত রায় চৌধুরীর সেবা ক্লিনিক, হায়বাতপুর মোঃ শাহাজাহান সিরাজের সুন্দরবন এ্যাপোলো হাসপাতাল, মোঃ আকবর হোসেনের নগর প্রাইভেট হাসপাতাল, মোঃ কামরুল ইসলামের সুন্দরবন নার্সিং হোম, শহীদ মুক্তিযোদ্ধা সড়ক, শ্যামনগরের মনোরঞ্জন মন্ডলের শান্তি ডায়াগণষ্টিক সেন্টার, বাধঘাটায় মোঃ হাবিবুর রহমানের আল-মদিনা ডায়াগণষ্টিক সেন্টার, নওয়াবেকীতে জি এম আশরাফুল মাহফুজের প্রযুক্তি ডায়াগণষ্টিক সেন্টার, সোলায়মান হোসেনের এম আর এ ডায়াগণষ্টিক সেন্টার, মোঃ আকবর হোসেনের পপুলার ডায়াগণষ্টিক সেন্টার, আশাশুনি বুধহাটার মোঃ রবিউল আলমের ১০ শয্যার জনসেবা ক্লিনিক, বুধহাটা, কুল্যার মোড়ের মোঃ রেজাউল্ল্যাহর ১০ শয্যার সোনার বাংলা ক্লিনিক, বুধহাটা বাজার, আশাশুনির মোঃ আসাফুর রহমানের বাবলা মেমোরিয়াল হাসপাতাল, শহীদ মুক্তিযোদ্ধা সড়ক, কালিগঞ্জ নলতার মোঃ জাহিদুল ইসলামের ১০ শয্যার নাহার সার্জিক্যাল ক্লিনিক, কালিগঞ্জের মোঃ রবিউল ইসলামের কালিগঞ্জ সার্জিক্যাল ক্লিনিক, কালিগঞ্জ নলতার মোঃ মিলন হোসেনের নলতা ডায়াবেটিক সেন্টার এন্ড ডিজিটাল ল্যাব, হাসপাতাল রোডে মোঃ আব্দুস সালাম গাজীর কালিগঞ্জ সার্জিক্যাল ক্লিনিক এন্ড ডায়াগণষ্টিক সেন্টার, দেবহাটায় সেলিনা বেগমের আহছানিয়া ক্লিনিক, কলারোয়ায় লাভলী আক্তারের কলারোয়া শিশু ও জেনারেল হাসপাতাল(প্রাঃ), হাসপাতাল রোড, কলারোয়ার মোঃ আয়ুব হোসাইনের সুরক্ষা ডিজিটাল ডায়াগণষ্টিক সেন্টার, মোঃ মাসুদ আলমের মুন্না ডায়াগণষ্টিক সেন্টার, মোঃ নজরুল ইসলামের কলারোয়া ডক্টরস ডিজিটাল ডায়াগণষ্টিক সেন্টার, পাটকেলঘাটা,তালার পুলক কুমার পালের ১০ শয্যার লোকনাথ নার্সিং হোমের, পাটকেলঘাটা,তালা আশরাফুল ইসলামের সেবা ডায়াগণষ্টিক সেন্টার, পলাশ শেখের জে এস ডায়াগণষ্টিক সেন্টার, মেলা বাজার বিধান চন্দ্র রায়ের তালা সার্জিক্যাল ডায়াগণষ্টিক সেন্টারসহ প্রায় ৪০টি প্রতিষ্ঠানের কেবল মাত্র মেয়াদ উত্তির্ণ ক্লিনিক্যাল লাইসেন্স রয়েছে।
এবং সদরের এ এস এম আল-ফাত্তাহর ক্রিস্টাল ডায়াগণষ্টিক সাতক্ষীরা, সাধন কুমার দাশের পঙ্গু এন্ড জেনারেল ডায়াগণষ্টিক সেন্টার, মোস্তাফিজুর রহমানের মেডিগাডের্ন ডায়াগণষ্টিক সেন্টার, কে এম মোজাহিদুল ইসলামের ডিজিটাল ডায়াগণষ্টিক সেন্টার, মোঃ আসাদুজ্জামান আসাদের বুশরা ডায়াগণষ্টিক সেন্টার, আফিফা রহমানের নাজমুন ক্লিনিক এন্ড ডায়াগণষ্টিক সেন্টার, অজয় কুমার ঘোষের সুরক্ষা ডিজিটাল ল্যাব, মোঃ ফজলুর রহমানের মাদার তেরেছা ডিজিটাল ডায়াগণষ্টিক সেন্টার, মোঃ আবু জাফরের সিটি ডায়াগণষ্টিক সেন্টার, মোঃ ফিরোজুর রহমানের ফারহান ডায়াগণষ্টিক সেন্টার, মিসেস নুরুন নাহারের নাহার ডায়াগণষ্টিক সেন্টার, মির্জা কামরুজ্জামানের ফাতিমা ডায়াগণষ্টিক এন্ড কনসালটেশন সেন্টার, কৃষ্ণ পদ পালের রটিনা ডায়াগণষ্টিক সার্ভিসেস, ডাঃ মোঃ এবাদুল্লাহর নওয়াব ডায়াগণষ্টিক সেন্টার, শেখ মোঃ জাকির হোসেনের ল্যাব এইড ডায়াগণষ্টিক সেন্টার, মাঃ আহছান উল্লাহর বিসমিল্লাহ ডিজিটাল ডায়াগণষ্টিক সেন্টার, তাসনিম আহমেদের আল-কাউসার ডায়াগণষ্টিক সেন্টার, শেফালী ঘোষের মোহেনী ডায়াগণষ্টিক এন্ড কনসালটেন্সী সেন্টার, গাজী আব্দুল হাফিজের সাতক্ষীরা ন্যাশনাল ডায়াগণষ্টিক সেন্টার, ঝাউডাংগা বাজার উষা রায়ের ঝাউডাংগা পাইলস এন্ড সার্জিক্যাল ক্লিনিক এন্ড ডিজিটাল ল্যাব, বুধহাটা মোঃ রবিউল আলমের জনসেবা ডায়াগণষ্টিক সেন্টার, মোঃ তাহাজ্জাত হোসেনের ডক্টর পয়েন্ট এন্ড ডায়াগণষ্টিক সেন্টার, সুলেখা মখোপ্যধ্যায়ের রেজাউল করিমের সাউদা ডায়াগণষ্টিক এন্ড কনসালটেনসি সেন্টার, মোঃ নুর ইসলামের ইউনিক ডায়াগণষ্টিক সেন্টার, কে এম মোজাহিদুল ইসলামের ডিজিটাল ডায়াগণষ্টিক এন্ড সিটিস্ক্যান সেন্টার, আবু বক্কর সিদ্দীকের শেফা ডায়াগণষ্টিক সেন্টার, মোঃ আব্দুল হামিদের পপুলার ডায়াগণষ্টিক ল্যাব, আলী আহছান মোজাহিদের ফাহিম ডায়াগণষ্টিক সেন্টার, পিয়ারুন নেছার সাতক্ষীরা ডায়াগণষ্টিক কমপ্লেক্স, জিয়াউর রহমানের নোভা ডায়াগণষ্টিক সেন্টার, মোঃ শফিকুল ইসলামের শফি ডায়াগণষ্টিক সেন্টার ও শ্যামনগর, হাসপাতাল রোড়ের এস এম জিয়াউল হকের ডিজিটাল ডায়াগণষ্টিক এন্ড কনসালটেশন সেন্টার, শহীদ মুক্তিযোদ্ধা সড়কের দেবদাস বৈদ্যর তট প্যাথলজি ডায়াগণষ্টিক সেন্টার, জি এম আব্দুল ওয়াজেদের ফাতিমা ডিজিটাল ডায়াগণষ্টিক সেন্টার, কালিগঞ্জ, নলতা শরীফের আনছার উদ্দীন আহমেদের আহছানিয়া মিশন চক্ষু ও জেনারেল হাসপাতাল ও ডায়াগণষ্টিক সেন্টার, তালার মোঃ রফিকুল ইসলাম শেখের লাইফ কেয়ার ল্যাব এন্ড কনসালটেশন সেন্টার, মোঃ আব্দুস সবুর শেখের এস কে ডায়াগণষ্টিক সেন্টার, শ্যামনগর পারভেস হায়দারের মেডিকেল সাইন্স্ ল্যাব, কালিগঞ্জে মোঃ ইয়াছিনের স্বপ্ন প‚রণ ডিজিটাল ডায়াগণষ্টিক সেন্টারসহ প্রায় ৪৫টি প্রতিষ্ঠানের শুধু মাত্র মেয়াদ উত্তির্ণ ডায়াগনস্টিক সেন্টারের লাইসেন্সস রয়েছে।


error: Content is protected !!