কালীগঞ্জ উপজেলায় ১২ ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের প্রার্থী যারা

0 ১৭৮

হাফিজুর রহমান: তফসিল ঘোষিত তৃতীয় ধাপের আগামী ২৮ নভেম্বর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে সাতক্ষীরার কালীগঞ্জ উপজেলার ১২টি ইউনিয়নের দলীয় প্রতীক নৌকার প্রার্থী চূড়ান্ত করেছে আওয়ামী লীগ। শুক্রবার (২২ অক্টোবর) বিকালে প্রধানমন্ত্রীর সরকারি বাসভবন গণভবনে দলের স্থানীয় সরকার জনপ্রতিনিধি মনোনয়ন বোর্ডের সভায় প্রার্থী তালিকা চূড়ান্ত করা হয়। সভায় সভাপতিত্ব করেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভানেত্রী ও বোর্ড প্রধান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। শুক্রবার রাতে আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়। কালীগঞ্জ উপজেলায় দল মনোনীত নৌকার প্রার্থীরা হলেন ০১নং কৃষ্ণনগর ইউনিয়ন পরিষদে যুবলীগ নেত্রী এবং সাবেক ইউপি সদস্য শ্যামলী রানী অধিকারী। অত্র ইউনিয়ন হতে ৩জন দলীয় মনোনয়নের জন্য দাবি করেছিল। তবে ইউনিয়নে জাতীয় পার্টির কেন্দ্রীয় নেত্রী প্রয়াত সাবেক চেয়ারম্যান উপজেলা জাতীয় পার্টির সাবেক সাধারন সম্পাদক চেয়ারম্যান কে এম মোশারফ হোসেনের কন্যা সাফিয়া পারভীন এবং থানা ছাত্রদলের সাবেক সভাপতি রবিউল্লাহ বাহার স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে নির্বাচন করবে এটা নিশ্চিত। সে ক্ষেত্রে ত্রিমুখী লড়াইয়ের সম্ভাবনা বেশি। ০২নং বিষ্ণুপুর ইউনিয়ন পরিষদে থানা আওয়ামী লীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক বিগত ইউপি নির্বাচনে দলীয় প্রতীক নিয়ে নির্বাচিত চেয়ারম্যান শেখ রিয়াজ উদ্দিন এবারও নৌকার মনোনয়ন পেয়েছে। অত্র ইউনিয়ন হতে এবার ৭জন দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশা করে আবেদন করেছিল। তবে অত্র ইউনিয়নে শক্তিশালী প্রার্থী হিসেবে থানার স্বেচ্ছাসেবক দলের সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে জোর প্রতিদ্ব›িদ্বতা করবে। ০৩নং চাম্পাফুল ইউনিয়নে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি বিগত ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে মোজাম্মেল হক গাইন নৌকা প্রতীক নিয়ে জয় লাভ করে। এবারও দলীয় প্রতীক তাকে দেওয়া হয়েছে। ইউনিয়ন পরিষদ হতে ৩ জন মনোনয়ন দাবি করে আবেদন করেছিল। তবে বিদ্রোহী প্রার্থী হিসেবে এক সময়কার বিএনপি নেতা সাবেক চেয়ারম্যান আব্দুল লতিফ মোড়ল স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে প্রতিদ্বন্দিতা করলে জোর দ্বিমুখী’ লড়াই হবে বলে আশা করা যাচ্ছে। ০৪নং দক্ষিণ শ্রীপুর ইউনিয়ন পরিষদ এবং ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি গোবিন্দ মন্ডল কে এবার দলীয় প্রতীক নৌকার মনোনয়ন দেওয়া হয়েছে। বিগত নির্বাচনে দলীয় প্রার্থী হিসেবে থানা আওয়ামী লীগের সাবেক সহ-সভাপতি প্রশান্ত সরকার কে দলীয় প্রতীকে জয় লাভ করে। এবার থানা বিএনপি’র সহ-সভাপতি সাবেক চেয়ারম্যান দিদারুল ইসলাম স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে নির্বাচন করবে জোর গুঞ্জন শোনা যাচ্ছে। সে ক্ষেত্রে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই হওয়ার সম্ভাবনা বেশি। ০৫নং কুশুলিয়া ইউনিয়নের নতুন মুখ হিসেবে আবুল কাশেম মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ দলীয় মনোনয়ন পাওয়ায় নেতাকর্মীরা অনেকটা উজ্জীবিত। সে সাবেক উপজেলা পরিষদ এর চেয়ারম্যান ও থানা আ’লীগের সাবেক সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা প্রয়াত আলহাজ্ব শেখ ওয়াহেদুজ্জামানের পুত্র। এবার দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশায় অত্র ইউনিয়ন আবেদন করে বিগত ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে তার বড় ভাই ইঞ্জিনিয়ার মেহেদী হাসান সুমন দলীয় প্রতীক নিয়ে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়। তার বাবা উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান এর মৃত্যুতে উপনির্বাচনে অংশগ্রহণ করলে প্রতিদ্ব›দ্বী প্রার্থী হিসেবে থানা বিএনপি’র সহ-সভাপতি শেখ এবাদুল ইসলাম আওয়ামীলীগের দলীয় প্রার্থী এডভোকেট শেখ মোজাহার হোসেন কান্টু কে পরাজিত করে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়। এবারও বিএনপি নির্বাচনে না আসায় স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে শেখ এবাদুল ইসলাম সহ অনেক বিদ্রোহী প্রার্থীর সঙ্গে জোর প্রতিদ্ব›িদ্বতা হবে। ০৬ নং নলতা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ এর সাধারণ সম্পাদক আবুল হোসেন পাড় এবার নতুন মুখ হিসেবে দলীয় মনোনয়ন লাভ করেছে। বিগত ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে সাবেক চেয়ারম্যান আসাদুজ্জামান সেলিম নৌকা প্রতীকে নির্বাচন করে বিপুল ব্যবধানে বিএনপি নেতা আজিজুর রহমানের নিকট পরাজিত হয়। এবারও স্বতন্ত্র প্রার্থী আজিজুর রহমান এর সঙ্গে জোর প্রতিদ্ব›িদ্বতা হবে জামায়াত-বিএনপি’র ঘাঁটি হিসেবে চিহ্নিত অত্র ইউনিয়ন। ০৭ নম্বর তারালী ইউনিয়নে থানা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এনামুল হোসেন ছোট এবারও দলীয় মনোনয়ন লাভ করে প্রতিদ্ব›িদ্বতা অবতীর্ণ হয়েছে। বিগত নির্বাচনে দলীয় প্রতীক নৌকা নিয়ে সে জয়লাভ করে। এবার মনোনয়নের জন্য ৫জন আবেদন করে। তবে দলীয় বিদ্রোহী প্রার্থী ছাড়া জামায়াতের মাওলানা আব্দুল গফুর স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে নির্বাচন করলে জোর প্রতিদ্ব›িদ্বতা হবে বলে আশা করা যাচ্ছে। ০৮ নং ভাড়াশিমলা ইউনিয়নে বিগত ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে পরাজিত ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবুল হোসেন এবারও দলীয় মনোনয়ন পেয়েছে। দলীয় মনোনয়ন না পাওয়ায় থানা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক নাজমুল ইসলাম নাঈম বিদ্রোহী প্রার্থী হিসেবে নির্বাচনে অংশগ্রহণ করবে বলে জোর গুঞ্জন শোনা যাচ্ছে। অন্যদিকে বিগত ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে থানা বিএনপি’র সাধারণ সম্পাদক নুর মহাম্মদ বিশ্বাস বিগত নির্বাচনে জয় লাভ করে। সে এবার প্রতিদ্ব›িদ্বতা করলে ত্রিমুখী লড়াই হবার সম্ভাবনা বেশি। ০৯ নং মথুরেশপুর ইউনিয়নে ফিরোজ আহমেদ নৌকায় মনোনয়ন পেয়েছে। তার নিজস্ব কোন দলীয় পরিচয় না থাকলেও বাবা নরিম আলী মাস্টার থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি হওয়ায় সে মনোনয়ন পেয়েছে বলে দলীয় নেতা-কর্মীদের ধারণা। অত্র ইউনিয়নে একেবারে নতুন মুখ হিসেবে তার বিরুদ্ধে দলের বিদ্রোহী সহ একাধিক স্বতন্ত্র প্রার্থী অংশগ্রহণ করবে। সে ক্ষেত্রে ভোট যুদ্ধে অবতীর্ণ হওয়া কষ্টকর হয়ে পড়বে। অত্র ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে এবার ৭ জন দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশা করে আবেদন করেছিল। ১০ নং ধলবাড়িয়া ইউনিয়ন পরিষদে বিগত নির্বাচনে আলহাজ গাজী শওকত হোসেন দলীয় প্রতীক নৌকা নিয়ে নির্বাচিত চেয়ারম্যান হিসেবে নানান বিতর্কে পাঁচ বছর কাটিয়েছেন। এবারও দলীয় প্রতীক তিনিই পেয়েছেন। তাকে দলীয় প্রতীক দেওয়ায় অত্র ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি সজল মুখার্জী সাধারণ সম্পাদক নাজমুস শাহাদাত ওরফে রাজা সহ একাধিক প্রার্থী নির্বাচনে বিদ্রোহী প্রার্থী হিসেবে অংশগ্রহণ করবে বলে দলীয় নেতাকর্মীদের ধারণা। সে ক্ষেত্রে ভোটযুদ্ধ করা অনেকটা কঠিন হয়ে পড়বে। ১১ নং রতনপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি আশরাফুল হোসেন খোকন বিগত ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে নৌকা প্রতীক নিয়ে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়। এবার তার ছোট ভাই আলিম আল রাজি টোকন কে দলীয় নৌকা প্রতীকে মনোনয়ন দেওয়ায় ভাই ভাইয়ে যুদ্ধ হওয়ার সম্ভাবনা বেশি। এবার ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে দলীয় প্রতীক এর জন্য ০৪জন মনোনয়ন প্রত্যাশায় আবেদন করেছিল। তবে অত্র ইউনিয়ন এ থানা বিএনপি’র সহ-সভাপতি সাবেক চেয়ারম্যান আব্দুল ওয়াহেদ স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে এবার নির্বাচনী মাঠে অবতীর্ণ হলে সেয়ানা সেয়ানা যুদ্ধ হবে। ১২নং মৌতলা ইউনিয়ন পরিষদে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক রুহুল আমিন গাজীকে নতুন মুখ হিসেবে এবার তাকে দলীয় মনোনয়ন দিয়েছে। উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে বর্তমান উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান সাঈদ মেহেদি অংশগ্রহণ করায় মৌতলা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান পদ শূন্য হয়। উপনির্বাচনে দলীয় প্রার্থী মাহবুবুর রহমান সুমন কে পরাজিত করে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী রফিকুল ইসলাম বাটুল চেয়ারম্যান হিসেবে নির্বাচিত হয়। এবার মনোনয়ন যুদ্ধে ৬ জন অংশগ্রহণ করলেও নতুন মুখ হিসেবে রুহুল আমিন গাজী কে মনোনয়ন দেওয়া হয়েছে। অত্র ইউনিয়ন বিএনপি’র একাধিক শক্তিশালী প্রার্থী থাকায় আওয়ামী লীগের ভোটযুদ্ধে জয় করা কঠিন হয়ে পড়বে বলে দলীয় নেতাকর্মীরা আশাঙ্খা করছে।


error: Content is protected !!