ছাদ বাগান

0 ২৯

সবাই ছাদে বাগান গড়ে তুলি

গাড়ীর কালো ধোয়া ইট ভাটাসহ কল-কারখানার উতপ্ততা পৃথিবীকে অক্সিজেন সংকট প্রকট সৃষ্টি করেছে। দেশের মোট জনসংখ্যা যেমন বেড়েছে তেমনি বেড়েছে প্রাকৃতিক পরিবেশ দুষণ প্রক্রিয়া, বেড়েছে বৈশ্বিক তাপমাত্রা। এক পরিসংখ্যানে দেখা যায় যে, ১৯৫০ সালে ঢাকা শহরের জনসংখ্যা ছিল মাত্র ৪ লাখ ১৭ হাজার, যা বর্তমানে দাঁড়িয়েছে ১ কোটিরও বেশি। ২০২২ সালে সম্ভাব্য জনসংখ্যা ২ কোটি ছাড়িয়ে যাবে। গত ১০০ বছরে ঢাকা শহরের তাপমাত্রা দেশের অন্যান্য স্থানের তুলনায় দেড়গুণেরও বেশি বৃদ্ধি পেয়েছে। পরিবেশ বিজ্ঞানীদের মতে, ঢাকা শহর পরিণত হচ্ছে উত্তপ্ত ভ‚খন্ড এবং পরিবেশ হচ্ছে বিপন্ন। গাছপালা কেটে ফেলা, জলাশয় ভরাট, যানবাহন ও কংক্রিটের স্থাপনা হু হু করে বেড়ে যাওয়াই এর অন্যতম প্রধান কারণ। সেজন্য ঢাকা মহানগরীর বাসাবাড়ি, ফ্ল্যাট বা ভবনের ছাদে শুধু ফুলের বাগান নয়, ফলম‚লের বাগান কার্যক্রমকে বাধ্যতাম‚লক করার জন্য ইতোমধ্যে কৃষি স¤প্রসারণ অধিদপ্তর ও ঢাকা সিটি করপোরেশন, রাজউক সরকারের কাছে সুপারিশ করেছে। এটি নিঃসন্দেহে পরিবেশ রক্ষায় যতার্থ উদ্যোগ।
ছাদে গার্ডেনিং কর্মস‚চি সফলতার জন্য এ মুহ‚র্তে রাজউক ও রিহ্যাবের ভ‚মিকাকে খাটো করে দেখা ঠিক হবে না বরং তারা এ ক্ষেত্রে যথেষ্ট সহায়ক ভ‚মিকা পালন করতে পারে। সিঙ্গাপুরের মতো দেশে এখন রাস্তার ফুটপাতগুলোকে সবুজ করার উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। ছাদে শুধু বাগান নয়, চৌবাচ্চা করে মাছ চাষ করাও যেতে পারে। ঢাকা শহরের পরিবেশ রক্ষার জন্য ছাদে বাগান কার্যক্রমকে এগিয়ে নেয়ার দায়িত্ব নগরবাসীর। বিজ্ঞ কৃষিবিদদের অনেক মতামতের মধ্যে অন্যতম ছাদগুলোকে বাণিজ্যিকভাবে ব্যবহার না করে নিজ দেশের পরিবেশ উন্নয়নের জন্য ফলের চাষাবাদ করাই শ্রেয়। এতে অর্থনৈতিক দিক থেকে স্বাবলম্বী হওয়া সহজতর। এছাড়া নগরীর সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে বাধ্যতামূলকভাবে বাগান কর্মস‚চিকে উৎসাহী করা উচিত। এমতাবস্থায় আগামী প্রজন্মের ও নগরবাসীর স্বার্থে ঢাকা শহরের প্রতিটি বাসাবাড়ি, ফ্ল্যাট, এমনকি মসজিদ ও মাদ্রাসার ছাদে ফুল ও ফলের বাগান সৃজন বাধ্যতাম‚লক করতে একটি আইন পাস করার মাধ্যমে জনসচেতনা কর্মস‚চি সফল করার আহবান জানাই। এ মহৎ উদ্যোগকে সফল করার জন্য শুধু ঢাকায় নয়, জেলা উপজেলা পর্যায়ে পৌছে দিতে হবে। আর সেজন্য সিটি করপোরেশন, জেলা ও উপজেলা পরিষদ, পৌরসভা ও ইউনিয়ন পরিষদের মাধ্যমে গণপ‚র্ত অধিদপ্তর, এনজিও, সামাজিক-সাংস্কৃতিক সংগঠনগুলোকে সার্বিক কযৃক্রমে এগিয়ে আসার অনুরোধ জানাই।