পুইজালা স্কুলের শিক্ষকদের হত্যার চেষ্টা, দা হাতুড়ি উদ্ধার

কর্তৃক Ahadur Rahman Jony
০ কমেন্ট 644 ভিউস

সংবাদদাতা: আশাশুনি উপজেলার পুইজালা ভুবোন মোহন, রাধা বল্লভ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে হত্যার উদ্দেশ্যে শিক্ষকদের তাড়িয়ে স্কুলের ভিতরে নিয়ে যাওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এব্যাপারে খবর পেয়ে পুলিশ আক্রমনকারীদের বাড়ি থেকে আক্রমনে ব্যবহৃত দু’টি দা ও হাতুড়ি উদ্ধার করেছে। স্কুলের প্রধান শিক্ষক রমেশ চন্দ্র মন্ডল বাদী হয়ে থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন।
লিখিত অভিযোগ ও প্রধান শিক্ষক জানান, বিবাদী একই গ্রামের বেলায়েত মোড়লের ছেলে জুলফিকার আলী, মুত দেছের আলীর স্ত্রী লায়লী বেগম স্কুলের পাশেই বসবাস করে। তারা খুবই হিংস্র ও দুর্দান্ত প্রকৃতির। তাদের বহু ছাগল ও রাজ হাঁস স্কুলের ঘেরাবেড়া ভেঙ্গে গাছগাছালি খেয়ে থাকে। শিক্ষকরা নিষেধ করলে অশ্লীল ভাষায় গালিগালাজ ও মান সম্মান হানি করে থাকে। ৩ মাস পূর্বে ছাগল তাড়ানো কারনে আধলা ইট নিয়ে ৬ষ্ঠ শ্রেণির ছাত্রীদের মারতে ৩য় তলায় শ্রেণি কক্ষে উঠেছিল। অনেক চেষ্টা করে শিক্ষকরা তাকে নিবৃত করেন। গত ৭/৮ দিন পূর্বে প্রধান শিক্ষকের অজ্ঞাতে ও স্কুলে ছুৃটি থাকার সুযোগে স্কুলের সীমানার কিছু জমি দখলে নিয়ে ঘেরাবেড়া দেয়। প্রধান শিক্ষক তাদেরকে ঘেরা তুলে নিতে বললে মাপামাপি করে ঘেরা তুলবে বলে জানায়। কিন্তু পরবর্তীতে নানা তালবাহনা করতে থাকলে সরকারি সম্পদ রক্ষার্থে প্রধান শিক্ষক ৩০ আগষ্ট ঘেরা তুলে ফেলেন। এসময় বিবাদীরা দা, হাতুল ও লাঠিশোটা নিয়ে প্রধান শিক্ষকসহ শিক্ষকদের খুন জখম করার উদ্দেশ্যে ধাওয়া করে। এবং ধর্মীয় শিক্ষক আবু মুছার হাত ধরে দা দিয়ে হাত কেটে নিতে হুমকী দেয়। শিক্ষকদের যেখানে পাবে খুন জখম করবে বলে হুমকী দিতে থাকলে প্রধান শিক্ষক ৯৯৯ নম্বরে জানালে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছলে আক্রমনকারীরা পালিয়ে যায়। এসময় পুলিশ বিবাদীদের বাড়ি হতে আক্রমনে ব্যবহৃত ২টি দা ও লোহার হাতুড়ি উদ্ধার করেন। স্কুলের শিক্ষক শিক্ষার্থীরা চরম নিরাপত্তাহীনতায় রয়েছেন।

রিলেটেড পোস্ট

মতামত দিন

error: Content is protected !!