ব্রহ্মরাজপুরে বিএনপি নেতাকে গ্রেফতার ও আ’লীগ নেতাকে বহিষ্কারের দাবীতে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিল

কর্তৃক Ahadur Rahman Jony
০ কমেন্ট 13 ভিউস

নিজস্ব প্রতিবেদক: সাতক্ষীরা সদর উপজেলার ব্রহ্মরাজপুর বাজারের সাহেব বাড়ী মোড়ে বৃহস্পতিবার (২৯ আগষ্ট) সকাল ১১ টায় ব্রহ্মরাজপুর ইউনিয়নের সর্বস্তরের জনগণের ব্যানারে ব্রহ্মরাজপুর ইউনিয়ন বিএনপির সাবেক সভাপতি স্বপন কুমার সাহার গ্রেফতার ও ব্রহ্মরাজপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি নিলিপ কুমার মল্লিক মাষ্টারের দল থেকে বহিষ্কারের দাবীতে বিক্ষোভ মিছিল ও মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। এতে এলাকার সকল শ্রেণী পেশার শত শত মানুষ স্বতঃস্ফুর্ত অংশগ্রহন করে।
মধুসুদন আঢ্যের সভাপতিত্বে মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন মকবুল হোসেন, নব কুমার সাধু, নুর ইসলাম গাজী, বিকাশ ঘোষ প্রমূখ। এছাড়া মানববন্ধনে উপস্থিত ছিলেন ব্রহ্মরাজপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের লোকমান হোসেন, মোঃ আব্দুল কাদের, আব্দুল কুদ্দুস, ব্রহ্মরাজপুর ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক মাহমুদ হোসেন লিটন, সদর থানা জাতীয় পার্টির নেতা জাহাঙ্গীর হোসেন, ব্রহ্মরাজপুর ইউনিয়ন জাতীয় পার্টির সাধারণ সম্পাদক শামসুর রহমান সোনা, আনন্দ, বাবু ঘোষ, অঞ্জন ঘোষ নান্টু, খোকন সাহা, উদয় বিশ্বাস, মিরান হোসেন প্রমূখ।
মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, একটি তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে বিএনপি নেতা স্বপন সাহা ব্রহ্মরাজপুর সাহাপাড়া গ্রামের মধুসূদন আঢ্যের দুই পুত্র জেলা তরুন লীগের সাবেক সহ-সভাপতি মৃত্যুঞ্জয় আঢ্য ও সদর থানা যুবলীগের সাবেক সংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক সঞ্জয় আঢ্যের নামে সদর থানায় মিথ্যা অভিযোগ দায়ের করে। স্বপন সাহা একজন যাত্রাশিল্পী ছিল। তার লাম্পট্যে বহু নারী সর্বস্ব হারিয়ে এলাকা ছেড়েছে। সে একজন কট্ররপন্থী ইউনিয়ন বিএনপি নেতা। ওয়ান ইলেভেন ও ২০১৩-২০১৪ সালে তার নেতৃত্বে ব্রহ্মরাজপুর ও ধুলিহরের মানুষ ভীত সন্ত্রস্থ ছিল। আসন্ন দূর্গাপূজার চাঁদা নেওয়াকে কেন্দ্র করে ও জমি-জমা সংক্রান্ত বিরোধে নিয়ে গত মঙ্গলবার (২৭) স্বপন সাহার সাথে মৃত্যঞ্জয় আঢ্য ও সঞ্জয় আঢ্যের মধ্যে হাতাহাতি সৃষ্টি হয়। এ নিয়ে তাদের বিরুদ্ধে টাকা ও চেইন ছিনতাইয়ের অভিযোগ এনে থানায় একটি মিথ্যা অভিযোগ দেয়। স্বপন সাহা ব্রহ্মরাজপুর সার্বজনীন পূজা মন্ডপ কমিটির সভাপতি হওয়ার সুবাদে ঘটনাটি ভিন্নখাতে নেওয়ার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। তার এ চেষ্টা কোনদিন সফল হবে না।
মানবন্ধনে বক্তারা চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিয়ে বলেন, “ধুলিহর-ব্রহ্মরাজপুরের কোন লোক যদি বলতে পারে যে স্বপন সাহা বিএনপির রাজনীতির সাথে জড়িত নয় তাহলে এই মানববন্ধনে সকলেই আমরা জুতার মালা গলায় পরে সারা সাতক্ষীরা জেলা ঘুরে বেড়াবো”।
বক্তারা আরো বলেন, এই বিএনপি নেতাকে বাঁচাতে বড় অংকের টাকার মিশন নিয়ে ব্রহ্মরাজপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি নিলিপ কুমার মল্লিক মাষ্টার মাঠে নেমেছে। গত বুধবার (২৮ আগষ্ট) ব্রহ্মরাজপুর বাজারে প্রকাশ্যে স্কুল ফাঁকি দিয়ে স্বপন সাহার হয়ে নিলিপ মাষ্টার আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীদের নিয়ে মানববন্ধনে অংশ নেয় ও বক্তব্য রাখে। এতেই বোঝা যায় নিলিপ মাষ্টার এই এলাকার বিএনপি ও জামায়াত-শিবির লোকজনের আশ্রয় ও প্রশয় দাতা। এই নিলিপ মাষ্টারের কারনে অনেকে এখন বাড়ী ছাড়া। সে এই এলাকার একজন সুদখোর। সুদের টাকায় ধুলিহর বাজারে বিশাল একটি মার্কেট নির্মান করেছে। সুদের টাকা দিতে না পারায় ব্রহ্মরাজপুর সাহা পাড়ার শিবনাথ সাহা, রামকৃষ্ণ সাহা, প্রান কৃষ্ণ সাহা ও জীবন সাহার দোকান ঘরে তালা মেরে দেয়। এ ঘটনায় রামকৃষ্ণ সাহা ও প্রান কৃষ্ণ সাহা এখন বাড়ী ছাড়া। এছাড়া তার হুমকি-ধামকিতে অসূস্থ হয়ে গত মঙ্গলবার দিবাগত রাতে শিবনাথ সাহা (হলো) হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মারা যায়। শুধু তাই নয় ধুলিহর ইউনিয়নের কোমরপুর গ্রামের মধুসুদন মন্ডলের সাথে ব্যবসা করতে গিয়ে বিপুল টাকা আত্মসাৎ করে। হঠাৎ এই মধু সুদন মারা গেলে তার পুত্র প্রদীপ মন্ডলকে কোন হিসাব না দিয়েই সমুদয় টাকা আত্মসাৎ করে রাতের অন্ধকারে খাতাপত্র অফিস থেকে চুরি করে নিয়ে যায়।
বক্তারা মানববন্ধনে বিএনপি নেতা স্বপন সাহাকে অবিলম্বে গ্রেফতার ও নিলিপ মাষ্টারকে আওয়ামী লীগ থেকে বহিষ্কারের জোর দাবী জানায়।
মানববন্ধন শেষে একটি বিক্ষোভ মিছিল ব্রহ্মরাজপুর বাজারের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিন করে।

রিলেটেড পোস্ট

মতামত দিন

error: Content is protected !!