শ্যামনগরে যুবককে পিটিয়ে টাকা ছিনতাই

0 ১৬৫

ভ্রাম্যমাণ প্রতিনিধি: সাতক্ষীরার শ্যামনগর উপজেলার সদর ইউনিয়নের মঠবাড়িয়ায় এক যুবককে রাতের আঁধারে বেধড়ক মারপিট করে ১২ হাজার টাকা ছিনতাই করেছে সন্ত্রাসীরা। বুধবার (২১ অক্টোবর) রাত আনুমানিক ১১ টার দিকে  মঠবাড়ী গ্রামের মোর্শেদ আলীর বাড়ির পাশে ঘটনাটি ঘটেছে। আহত মোঃ আসমত শেখ (২২) মুন্সিগঞ্জ ইউনিয়ন মৌখালী গ্রামের মৃত আমজেত শেখার ছেলে। আসমতের পিতা মাতা বেঁচে না থাকার কারণে মঠবাড়িতে তার ফুফু ফাতেমা বেগমের বাড়িতে থাকে।

বুধবার দিবাগত রাতে মঠবাড়ি সালামের চায়ের দোকান থেকে আই,পি,এল খেলা দেখে যাওয়ার পথে মর্শেদের বাড়ির সন্নিকটে পৌঁছালে সন্ত্রাসীরা আসমতের পিছন দিক থেকে গলায় রশি পেঁচিয়ে এলোপাথাড়ি মারপিট করে তার হাতে থাকা একটি অ্যান্ড্রয়েড মোবাইল ফোন কেড়ে নেওয়া চেষ্টা করে। মোবাইল নিতে না পারায় তাকে মারপিট করে ঘটনাস্থলে অবস্থিত রবিউল ইসলামের ঘেরের মধ্যে পানিতে ফেলে দেয়। তখন সে চিৎকার করলে স্থানীয় প্রতিবেশী  মিজানুর রহমান, এনামুল, মর্শেদ, রিজিয়া বেগম, সকিনা বেগম সহ অনেকে এসে তাকে উদ্ধার করে দ্রুত শ্যামনগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপে¬ক্সে ভর্তি করে। এ বিষয়ে ভুক্তভোগীর পরিবারের পক্ষ থেকে শ্যামনগর থানার লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।

অভিযোগ পেয়ে শ্যামনগর থানার এএসআই শফিকুল ইসলাম (শফিক) স্বাস্থ্য কমপে¬ক্স ও ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। তিনি বলেন, হামলাকারী ছেলেটির বিরুদ্ধে এর আগেও এ ধরনের অনেক অভিযোগ আছে। এছাড়াও স্থানীয়রা বলেন, সাগর একজন মাদকাসক্ত এবং নানা অপকর্মের সঙ্গে জড়িত বর্তমানে সে এলাকায় একটি কিশোর গ্যাং তৈরি করেছে।

শ্যামনগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপে¬ক্সে চিকিৎসাধীন আসমত বলেন, আমি খেলা দেখে বাড়ি যাওয়ার পথে মঠবাড়ির হাসান মিস্ত্রির ছেলে সাগর ও অন্য একজন আমাকে পিছন দিক থেকে আমার গলায় রশি পেচিয়ে ব্যাপক মারপিট করে। তারা আমার মোবাইল নেওয়ার চেষ্টা করে এবং আমার কাছে থাকা ১২ হাজার টাকা জোর করে ছিনিয়ে নিয়ে আমাকে একটি মৎস ঘেরের মধ্যে পানিতে ফেলে দেয়। অভিযুক্ত সাগরের বাবা হাসান মিস্ত্রি বলেন, আমার ছেলে আসমতকে মারপিট করেছে এটি সত্য তবে টাকা ছিনতাই করার বিষয়টি সত্য নয়। শ্যামনগর থানার অফিসার ইনচার্জ আলহাজ্ব নাজমুল হুদা বলেন, আমি ঘটনাটি শুনেছি। বিষয়টি নিয়ে তদন্ত সাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।