সুন্দরবনে বিজিবি‘র অভিযানে গরু পাচারের ট্রলার ও মাদক উদ্ধার

কর্তৃক Ahadur Rahman Jony
০ কমেন্ট 28 ভিউস

আব্রাহাম লিংকন: সুন্দরবনে কৈখালী ক্যাম্প বিজিবির অভিযানে গরু পাচারের ট্রলার ও মাদক উদ্ধার। জনাগেছে, গত কাল সন্ধ্যা ৬টার সময়ে কৈখালী বিজিবি‘র সার্জেন মো: লিটন তালুকদারের নের্তৃত্বে সাতক্ষীরা রেঞ্জের পশ্চিম সুন্দরবনের কালুন্দী নদীর কচুখালী নামক স্থানে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে গরু পাচারের ১টি ট্রলার ও ১ বোতল বিদেশী মদ উদ্ধার করেন। কৈখালী বিজিবি‘র সার্জেন মো: লিটন তালুকদার জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে সুন্দরবনের কালুন্দী নদীর কচুখালী নামক স্থানে গিয়ে দুর থেকে দেখি একটি ট্রলারে পাচারকারীরা আমাদের দেখে দ্রুত চালাতে থাকে। ঐ সময়ে আমরাও তাদেরকে ধাওয়া করি। এক পর্যায়ে ভারতের সীমানা অতিক্রম হয়ে ভারতের ভিতর পৌছে গেলে পাচারকারীরা ব্যাগ ভর্তি বিদেশী মদ নিয়ে ভারতের গহীন জঙ্গলে লাফিয়ে পালিয়ে যায়। আমরা তাদেরকে ধরার চেষ্টা করলেও বেশ দুরত্ব হওয়ার ফলে তাদেরকে আটক করতে পারিনি। তবে ট্রলারটি সহ ১ বোতল বিদেশী মদ উদ্ধার করি। তবে ট্রলারটি বিজিবি সনাক্ত করতে না পারলেও সনাক্ত করেছে স্থানীয় জেলেরা। জানাগেছে, সুন্দরবনের বনদস্যু জাকির বাহিনীর প্রধান জাকির ২০১৮ সালে বাংলাদেশ সরকারের কাছে আতœসমর্পণ করে। সরকার কর্তৃক তাকে ক্ষমা করা হয়। গত মাস দুই আগে জাকির তার ট্রলারটি টেংরাখালী গ্রামের শেখ ফরিদের পুত্র ফারুক হোসেনের কাছে বিক্রয় করে দেয়। সেই থেকে ট্রলারটি জেলেদের কাছে খুব পরিচিত। এদিকে বিজিবি জানান, আমরা নির্দিষ্ট প্রমান না পেলে কিছু বলতে পারছি না। আমরা দ্রুত ট্রলার মালিককে সনাক্ত করার চেষ্টা করবো এবং সাথে থাকা জড়িতদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করবো। এদিকে সাতক্ষীরা জেলায় বিভিন্ন স্থানে খাটাল থাকলেও শ্যামনগরে কোন বৈধ খাটালের অনুমোদন নেই। স্থানীয় কিছু ব্যবসায়ীরা উপরি মহল ম্যানেজ করে ভারত থেকে অবৈধ পথে গরু নিয়ে আসছে। তবে এখানেই শেষ না তার সাথেও আসছে ইয়াবা, বিদেশী মদ, ফেনসিডিল, গাজা সহ বিভিন্ন প্রকারের মাদক দ্রব্য।অবৈধ পথে গরু নিয়ে আসা কালিঞ্চী গ্রামের আকবার তরফদারের পুত্র আব্দুল¬্যাহ, ধুমঘাট গ্রামের ওমর আলী গাজীর পুত্র মাহাতাব, গোলাখালী গ্রামের ছেয়ামউদ্দীন মোল¬্যার পুত্র জামির আলী ওরফে জামু ও হাসান অবৈধ পথে গরু এনে রাতে আধাঁরে এলাকার বিভিন্ন ব্যবসায়ীদের মাঝে বিক্রয় করে থাকে এবং সেই সাথে মাদকও দ্রব্য চড়া দামে বিক্রয় করে। নাম প্রকাশে অনিছুক ব্যক্তিরা জানান, ভারত থেকে অবৈধ পথে গরু নিয়ে আসা কালিঞ্চী গ্রামের আকবার তরফদারের পুত্র আব্দুল¬্যাহ, পাতাড়াখোলা গ্রামের মৃত্যু আনছার মোড়ল পুত্র বাসার মেম্বার প্রাক্তন (ইউপি সদস্য), ধুমঘাট গ্রামের ওমর আলী গাজীর পুত্র মাহাতাব, পাশ্বেখালী গ্রামের ইমান আলী গাজীর পুত্র আক্তার হোসেন খোকন, গোলাখালী গ্রামের ছেয়ামউদ্দীন মোল¬্যার পুত্র জামির আলী ওরফে জামু, বংশিপুর গ্রামের নুর আলী গাজীর পুত্র ইব্রাহিম গাজী, সামছুর গাজীর পুত্র মনিরুজ্জামান বাবু, সামছুর গাজীর পুত্র মুকুলু ও হাসান। তবে এখানেই থেমে নেই ভারত থেকে গরুর সাথে আসছে বিভিন্ন ধরনের ইয়াবা, বিদেশী মদ, ফেনসিডিল, গাজা সহ বিভিন্ন প্রকারের মাদক দ্রব্য।

রিলেটেড পোস্ট

মতামত দিন

error: Content is protected !!